বুধবার, ০৬ Jul ২০২২, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
উজিরপুরে ৮ম শ্রেনীর ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করায় বখাটে ইমন মিয়া গ্রেফতার বরিশালে ডাকাত- পুলিশ গোলাগুলি ইউপি সদস্যর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়ায় মানববন্ধন করে এলাকাবাসী পদ্মা সেতু উদ্বোধনে বদলে যাচ্ছে দক্ষিণাঞ্চলের অর্থনীতি কাশিয়ানীতে পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে র‍্যালী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পদ্মা সেতু উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী দেখুন পদ্মা সেতু হয়েছে কিনা: খালেদাকে শেখ হাসিনা পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে বরিশালে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা কলাপাড়ায় শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার-১ কলাপাড়ায় শিশু শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে বার্ষিক ক্রিড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ঘাটতি নেই বরিশালে কোরবানিযোগ্য গবাদি পশুর গলাচিপায় ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজ নিয়ে ২ বছর পর্যন্ত ভোগান্তিতে শিক্ষার্থী এবং ব্যবসায়ী বরিশালে জন্ম নিলো তিন কন্যা সন্তান স্বপ্ন-পদ্মা ও সেতু বরিশালে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধান নিবেদন সিলেটে আইডিয়াল হিউম্যান ওয়েলফেয়ার সোসাইটির উদ্যোগে খাদ্য ও বস্ত্র বিতরণ
বঙ্গবন্ধু উদ্যানে শতবর্ষী রেইন-ট্রি গাছটি এখন মৃত

বঙ্গবন্ধু উদ্যানে শতবর্ষী রেইন-ট্রি গাছটি এখন মৃত

Sharing is caring!

এস এল টি তুহিন: বরিশাল মহানগরীতে আরো একটি শতবর্ষী রেইন-ট্রি গাছ মারা যাচ্ছে। নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যান বা বেল পার্কের উত্তর প্রান্তে বিশাল আকৃতির গাছটি দীর্ঘদিন এ উদ্যানে বেড়াতে আসা সবাইকে ছায়া দিয়ে রেখেছে। নজর কেড়েছে সব আগন্তুকের। ১৯৯৮ সালে গাছটির গোড়ায় চার পাশ বাধাই করে বসার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। বছর দেড়েক আগে সেটি সংস্কার করে আরো দৃষ্টিনন্দন করা হয়েছে। কিন্তু কালের স্বাক্ষী শতবর্ষী এ গাছটি এখন মৃত্যু পথযাত্রী।

১৯০৩ সালে তৎকালীন বাকেরগঞ্জ থেকে জেলা সদর বরিশাল শহরে স্থানান্তরের পরে বিচার বিভাগ, পুলিশ, প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের আবাসিক এলাকা হিসেবে গড়ে ওঠে তৎকালীন বেল পার্ক সংলগ্ন রাজা বাহাদুর রোড। তখন বেল পার্ক ও রাজাবাহাদুর রোডের পাশে বেশ কিছু রেইন-ট্রি গাছ লাগানো হয়েছিল। ক্রমে তা দৃষ্টনন্দন হয়ে উঠলেও অযত্নে-অবহেলায় গত দুই দশকে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের বাসভবনের সামনে এবং বিভাগীয় কমিশনারের বাসভবনের দক্ষিণ পাশের বেশ কিছু রেইন-ট্রি গাছ কেটে ফেলতে হয়েছে ।

বঙ্গবন্ধু উদ্যানের ভেতরে ২০০৪ সাল থেকে ২০১০ সালে সিটি করপোরেশন থেকে বেশ কিছু দৃষ্টিনন্দন বৃক্ষরোপন করা হলেও এর বাইরের গাছগুলোর প্রতি কারো নজর নেই। গণপূর্ত অধিদফতরের মালিকানাধীন বঙ্গবন্ধু উদ্যানে ইতোপূর্বে ওয়াকওয়েসহ সব ধরনের স্থাপনা নির্র্মাণ করেছে গণপূর্ত অধিদফতর। কিন্তু উদ্যানটি ব্যবহারের অনুমোদনসহ সার্বিক দেখভাল করছে জেলা প্রশাসন। আবার বাতিসহ পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার কাজটি করছে সিটি করপোরেশন।

এ ত্রিমুখী ব্যবস্থাপনায় উদ্যানটির সার্বিক উন্নয়নসহ এখানের প্রাকৃতিক পরিবেশ ও সামাজিক পরিবেশ রক্ষার বিষয়ে কারো দায় নেই বলে মনে হচ্ছে। যেকোন সমস্যার কথা তুলে ধরলে তখন এক দফতর অন্য দফতরের ওপর দায় চাপানোর চেষ্টা করে।

সর্বশেষ বঙ্গবন্ধু উদ্যানের শতবর্ষী এ রেইন-ট্রির বিষয়টি নিয়ে গণপূর্ত অধিদফতরের নির্বাহী প্রকৌশলীর সাথে আলাপ করা হলে তিনি বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত নন বলে জানিয়ে খোঁজ-খবর নিয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন। বরিশালের বন সংংরক্ষক তাদের সৃজিত বাগানের বাইরের কোন গাছ গাছালির ব্যাপারে কিছু করণীয় নেই বলে জানান। জেলা প্রশাসকের সাথে বিষয়টি নিয়ে আলাপ করা হলে তিনি বিষয়টিকে দুঃখজনক বলে অভিহিত করে এ ব্যাপারে যা কিছু করা সম্ভব তা করবেন বলে জানিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © crimeseen24.com-2017
Design By MrHostBD